1. admin@naldangabatra.com : admin :
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০১:৫৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নলডাঙ্গায় বিপ্রবেলঘড়িয়া ইউনিয়নে উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা।  শপথ নিলেন রংপুর বিভাগের ১৯ উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানগণ। রাজশাহী বিভাগে ২৩ উপজেলায় শপথ নিলেন চেয়ারম্যানরা। নলডাঙ্গার খাজুরা ইউনিয়নে উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা।  পাবনা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থীর স্ত্রী ও সমর্থকদের ওপর হামলা। জেলা শিল্পকলা একাডেমি নওগাঁতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ৫২র প্রেক্ষাপটে নাটক ‘রাজমিস্ত্রি’ নরসিংদীর রায়পুরায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীকে পিটিয়ে হত্যা। চাটমোহরে দুলাল,ভাঙ্গুড়ায় রাসেল ও ফরিদপুরে খলিলুর রহমান চেয়ারম্যান বিজয়ী । পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন রাসেল । পাবনায় তেলবাহী লরির চাপায় নিহত ২

পাবনায় গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু-পরিবারের দাবি হত্যা

নলডাঙ্গা বার্তা ডেস্ক :
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩
পাবনার সাঁথিয়ায় সোনিয়া খাতুন (২০) নামে এক গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। সে উপজেলার ধূলাউড়ি ইউনিয়নের ফুলবাড়ি গ্রামের জাহিদ বারই’র স্ত্রী এবং একই ইউনিয়নের নূরদহ গ্রামের সিদ্দিকুর রহমানের মেয়ে। 
৬৫ বার পঠিত
পাবনায় গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু-পরিবারের দাবি হত্যা!
পাবনা জেলা প্রতিনিধিঃ 
পাবনার সাঁথিয়ায় সোনিয়া খাতুন (২০) নামে এক গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। সে উপজেলার ধূলাউড়ি ইউনিয়নের ফুলবাড়ি গ্রামের জাহিদ বারই’র স্ত্রী এবং একই ইউনিয়নের নূরদহ গ্রামের সিদ্দিকুর রহমানের মেয়ে।
এদিকে সোনিয়া খাতুনের পরিবার দাবি করছেন পরিকল্পিতভাবে তাকে  হত্যা করে আত্মহত্যা বলে প্রচার চালাচ্ছে সোনিয়া খাতুনের শশুরবাড়ির লোকজন। ঘটনার পর থেকে গৃহবধুর শশুরবাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় মেয়ের বাবা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। স্থানীয় ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রোববার (২৯ জানুয়ারী) রাত ৯ টার দিকে সোনিয়াকে তার স্বামীর বাড়ির বসতঘরে আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলে থাকার খবর শুনে মেয়ের পরিবারের লোকজন থানা পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ সোমবার (৩০ জানুয়ারী) লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা মর্গে পাঠায়।
সোনিয়া খাতুনের বাবা সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘আমার মেয়ের প্রায় তিন বছর আগে বিয়ে হয়েছিল। তারা একে অপরকে পছন্দ করে বিয়ে করেছিল। বিয়ের সময় কোন যৌতুক দেওয়ার কথা ছিলনা, তবুও আমি ৫০ হাজার টাকা দিয়েছিলাম। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই  জামাই যৌতুকের জন্য এবং বিদেশ যাওয়ার জন্য আমার কাছে ২ লাখ টাকা দাবি করে আসছিল। আমি টাকা দিতে না পারায় আমার মেয়েকে সে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে প্রচার করছে।’
এ ব্যাপারে সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলার প্রক্রিয়া চলছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর রহস্য জানা যাবে এবং পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
Facebook Comments Box

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ ©  নলডাঙ্গা বার্তা

 
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park