1. admin@naldangabatra.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৪:২২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রংপুরে দুলা ভাইয়ের হাতে শ্যালক খুন। নড়াইল জেলা পুলিশের অভিযানে গত ২৪ ঘন্টায় বিভিন্ন অপরাধে গ্রেফতার ১৪ জন পাবনায় শ্যালো ইঞ্জিনচালিত নছিমন নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ২ জন নিহত আহত ৭  প্রচন্ড গরমে জনজীবন অতিষ্ঠ নলডাঙ্গায় বাড়ছে তালের শাঁসের কদর। পিরোজপুরে অপরাজিতা নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন প্রকল্পের ফলাফল শেয়ারিং মিটিং অনুষ্ঠিত বাগমারায় হত্যা মামলার বাদিকে হুমকির অভিযোগ, নিরাপত্তাহীন ভুগছেন বাদির পরিবার..! লালপুরে পুকুর খনন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ। মান্দায় ১৪৪ বোতল ফেনসিডিলসহ মোটরসাইকেল জব্দ নাটোরের সিংড়ায় প্রেস ব্রিফিং লালুপরে আশ্রয়নের ঘরে ঝুলছে তালা, থাকেনা বেশিরভাগ সুবিধাভোগীরা!

দূর্গাপুর কয়ামাজমপুরে স্কুলের সভাপতি সিরাজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ

নলডাঙ্গা বার্তা ডেস্ক :
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৬ জুন, ২০২৩
রাজশাহী দূর্গাপুর উপজেলার কয়ামাজমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির প্রত্যক্ষ ভোটে পর পর দুই বার নির্বাচিত সভাপতি সিরাজ উদ্দিন (৫৫) বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ উঠেছে। সভাপতির একটি ছবি মাদকসহ এডিটিং করে ফেসবুকে ভাইরাল করে অপপ্রচার করছে একটি পক্ষ গত সোমবার রাতে গোলাম মোস্তফা নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে স্কুলের বর্তমান সভাপতির মাদকসহ এডিটিং করা একটি ছবি ভাইরাল করা হয় বলে অভিযোগ করেন কয়ামাজমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির বর্তমান সভাপতি ও কয়ামাজমপুর গ্রামের চকপাড়া মৃত ছেফাতুল্লাহর ছেলে আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজ উদ্দিন।
১০৫ বার পঠিত

দূর্গাপুর কয়ামাজমপুরে স্কুলের সভাপতি সিরাজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ

 

মো:জাহাঙ্গীর আলম, স্টাফ রিপোর্টারঃ

রাজশাহী দূর্গাপুর উপজেলার কয়ামাজমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির প্রত্যক্ষ ভোটে পর পর দুই বার নির্বাচিত সভাপতি সিরাজ উদ্দিন (৫৫) বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ উঠেছে। সভাপতির একটি ছবি মাদকসহ এডিটিং করে ফেসবুকে ভাইরাল করে অপপ্রচার করছে একটি পক্ষ গত সোমবার রাতে গোলাম মোস্তফা নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে স্কুলের বর্তমান সভাপতির মাদকসহ এডিটিং করা একটি ছবি ভাইরাল করা হয় বলে অভিযোগ করেন কয়ামাজমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির বর্তমান সভাপতি ও কয়ামাজমপুর গ্রামের চকপাড়া মৃত ছেফাতুল্লাহর ছেলে আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজ উদ্দিন।

মঙ্গলবার বিকেলে গনমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি দাবি করেন, দীর্ঘদিন যাবত আমি ও আমার পরিবার আওয়ামী লীগের রাজনিতির সাথে জড়িতো। মানুষের সুখে দুখে পাসে থেকে সেবা করে আসছি গ্রামের ও দলের মানুষদের। আওয়ামী লীগের রাজনিতির সাথে জড়িতো থাকার অপরাধে জামাত-বিএনপির সরকার নাদিম মোস্তফা এমপি থাকা কালিন আমার পরিবার ব্যাপক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। বাড়িতে হামলা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির শিকার হয়ে নিজ বাড়ি ছাড়া ছিলাম দীর্ঘদিন। বাংলা ভাই এর নির্যাতনের ভয়ে দীর্ঘদিন বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে ছিলাম পরিবারসহ। সেই সময় আমার বড় ছেলের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে জেল হাজতে পাঠায়। দীর্ঘদিন কারাগারে থাকার পরে কিছু দিন আগে সে বের হয়েছে। এতে প্রচুর অর্থ নৈতিক ক্ষতি হয়েছে। তার পরেও বর্তমানে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে আওয়ামী লীগের রাজনিতির সাথে সক্রিয় ভাবে আছি। তিনি আরো জানান, দূর্গাপুর উপজেলার ২ নং কিসমত গনকৈড় ইউনিয়নের কৃষক লীগের ১০ বছর যাবত সভাপতির দাযিত্ব পালন করছি। এর আগে ১০ বছর সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছি। বর্তমানে আমার বয়স প্রায় ৫৫ বছর। গত ২০১৯ সালে কয়ামাজমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রত্যক্ষ ভোটে ২ বছর মেয়াদি প্রথম স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছি। ২য় বারের মতো গত ২০২২ সালে ফের ভোটের মাধ্যমে কয়ামাজমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ২ বছরের জন্য নির্বাচিত হয়েছি। এ মেয়াদের কমিটি ৬ মাস চলছে। বিগত সময় স্কুলের কমিটিতে ৫ বছর অভিভাবক ও বিদ্যুতসাহী সদস্য হিসাবে সফল ভাবে দাযিত্ব পালন করেছি।

তিনি আরো দাবি করেন, স্কুলের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে একটি পক্ষ চড়ম বিরোধীতা করে আসছে আমার সাথে। বিভিন্ন ভাবে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে তারা মিথ্যা আমার বিরুদ্ধে। সাম্প্রতিক স্কুলে কিছু লোক নিয়োগ হবে। সেই নিয়োগ কে কেন্দ্র করে ও রাজনৈতিক ভাবে আমার সুনাম ক্ষুন্ন করতে একটি পক্ষ প্রতিহিংসা মুলক আমার শীতের সময়ের একটি ছবি ব্যবহার করে ছবি এডিটিং করে হাতে মাদক দিয়ে গত সোমবার গোলাম মোস্তফা নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে ভাইরাল করে। বর্তমানে আমার বয়স ৫৫ বছর। আর স্ত্রী ও দুই ছেলে সন্তান। এ বয়সে মাদক সেবনতো দূরের কথা মাদকের সাথে সম্পৃক্ত থাকার প্রশ্নই উঠেনা। যা এলাকাবাসী অবগত রয়েছে।

উল্ল্যখ, ২০১৯ সালে প্রথম স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পরে নিজ উদ্যোগে আইসিটি মন্ত্রাণলয় থেকে স্কুলে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যব স্থাপন করেছি। এছাড়া স্কুলের নতুন ভবন নির্মান ও সংস্কারের মধ্যমে স্কুলের উন্নয়ন করেছি। এসব কর্মকান্ডের কারনে প্রতিহিংসা মুলক একটি পক্ষ সভাপতি পদ থেকে আমাকে সরাতে মরিয়া হয়ে উঠে। এছাড়া কতিপয় কিছু ব্যক্তি বিভিন্ন ভাবে আমার কাছে চাঁদা দাবি করলে তাদের চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তারা আমার বিরুদ্ধে উঠে পড়ে লাগে ক্ষতিকরার জন্য। তারা আমি বিভিন্ন মানুষের কাছে থেকে টাকা নিয়েছি বলেও মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে আসছে দীর্ঘদিন থেকে। এমন মিথ্যা অপপ্রচার ও একজনের ছবি মাদকসহ এডিটিং করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করা ডিজিটাল নিরাপত্তা অপরাধ। এ ঘটনায় যারা আমার ছবি ফেসবুকে ভাইরাল করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুুতি প্রক্রিয়াধিন রয়েছে।

Facebook Comments Box

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ ©  নলডাঙ্গা বার্তা

 
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park