1. admin@naldangabatra.com : admin :
শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ০৩:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানকে এসআইবিএল এর সম্মাননা প্রদান। লালপুরে অগ্নিকাণ্ডে ভ্যানচালকের ঘরবাড়ি ভস্মীভূত! পাবনার ৩ উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যাঁরা। নলডাঙ্গায় ব্রহ্মপুর ইউনিয়নে উন্মুক্ত বাজেট সভা অনুষ্ঠিত  আটঘরিয়ায় টানা দ্বিতীয় বারের মত চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন তানভীর, ভাইস চেয়ারম্যান মহিদুল, তহুরা । পীরগাছায় মাদ্রাসার ছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার। গলায় ফাঁস দিয়ে লালপুরে যুবকের আত্নহত্যা! লালপুরে পুকুরের পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু নলডাঙ্গায় বিপ্রবেলঘড়িয়া ইউনিয়নে উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা।  শপথ নিলেন রংপুর বিভাগের ১৯ উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানগণ।

পাবনায় গৃহবধুকে হত্যার অভিযোগে স্বামী সুমন আটক

নলডাঙ্গা বার্তা ডেস্ক :
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৭ জুলাই, ২০২৩
পাবনার সাঁথিয়ায় রোখসানা খাতুন (২৬) নামে এক গৃহবধুকে হত্যার অভিযোগে স্বামী সুমনকে আটক করেছে থানা পুলিশ। সে সাঁথিয়া উপজেলাধীন পার-করমজা গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে। নিহত রোকসানা পার্শ্ববর্তী শাহজাদপুর উপজেলার চয়রা গ্রামের রওশনের মেয়ে।
১৩০ বার পঠিত
পাবনায় গৃহবধুকে হত্যার অভিযোগে স্বামী সুমন আটক
মাসুদ রানা, পাবনা প্রতিনিধিঃ
পাবনার সাঁথিয়ায় রোখসানা খাতুন (২৬) নামে এক গৃহবধুকে হত্যার অভিযোগে স্বামী সুমনকে আটক করেছে থানা পুলিশ। সে সাঁথিয়া উপজেলাধীন পার-করমজা গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে। নিহত রোকসানা পার্শ্ববর্তী শাহজাদপুর উপজেলার চয়রা গ্রামের রওশনের মেয়ে।
নিহতের পারিবারিক ও সাঁথিয়া থানা সুত্রে জানা গেছে, গত ৮ বছর আগে পার্শ্ববর্তী শাহজাদপুর উপজেলার চয়রা গ্রামের রওশনের মেয়ে রোকসানা খাতুনের বিয়ে হয় সাঁথিয়া উপজেলার পার-করমজা গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে সুমনের সাথে। তাদের ঘরে ৪ বছরের একটি মেয়ে ও দেড় বছরের এক ছেলে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে সুমন তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে প্রায়ই রোকসানাকে শারিরীক ও মানুষিক নির্যাতন করতো। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার রাত ১০টার দিকে ঔষধ খাওয়াকে কেন্দ্র করে দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়।
এক পর্যায়ে স্বামী সুমন রোকসানাকে মারপিট করলে সে মারা যায়। নিহতের গলায়, মুখে, মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। হত্যার অভিযোগে থানায় আটককৃত সুমন জানায়, ঘটনার দিন রাতে ঔষধ খাওয়াকে কেন্দ্র করে দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়। এর পর সুমন রেগে গিয়ে রোকসানাকে মারপিট করলে সে পড়ে যায়। ওর দাত লেগে গেছিল আমি বুঝতে পারি নাই। পরে দেখি মারা গেছে। মেয়ের বাবা রওশন আলম জানান, বিয়ের পর থেকেই আমার মেয়েকে সুমন নানাভাবে শারিরীক মানুষিক নির্যাতন করতো। টাকা পয়সা চাইতো।  সে আমার মেয়েকে হত্যা করেছে। আমি এর বিচার চাই।
সাঁথিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম জানান, ওদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ ছিল। ঘটনার দিন দুজনের মধ্যে গোন্ডগোল হয়। সুমন রোকসানাকে মারপিট করলে সে পড়ে যায়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে আঘাতে তার মৃত্য হয়েছে।
নিহতের স্বামী সুমনকে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।
Facebook Comments Box

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ ©  নলডাঙ্গা বার্তা

 
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park