1. admin@naldangabatra.com : admin :
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৮:৩৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
অবহেলিত চলনবিল আজ উন্নয়নের রোল মডেল- পলক। দ্রুত বাড়ছে তিস্তার পানি নদীপাড়ে আতঙ্ক বিরাজ। মান্দার চৌবাড়িয়া হাটে অতিরিক্ত খাজনা আদায়ের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা। আব্দুলপুর বাজারে  আগুন, আটটি দোকানঘর ও মালামাল পুড়ে ছাই লালপুরে সাবেক সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ মমতাজ উদ্দিন স্মরণে স্মরণসভা অনুষ্ঠিত বড়াইগ্রামে ইউপি কার্যালয়ে ঢুকে ভাংচুর ও চেয়ারম্যানকে মারধর; প্রতিবাদে মহাসড়ক অবরোধ। নড়াইল সদর উপজেলার নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব গ্রহণ। বাগমারায় পূর্ব শত্রুতার জেরধরে ফলন্ত আম গাছ কেটে ফেলেছে দুস্কৃতকারীরা। ঈদে ঘরমুখো মানুষের হয়রানী ও টিকেট কালোবাজারী বন্ধে পুলিশ ও র‌্যাবের সাব-কন্ট্রোল রুম চালু। নলডাঙ্গায় দুর্নীতি বিরোধী বিতর্ক ও রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

বাগমারা’য় সাধারণ মানুষের প্রানের দাবী নতুন প্রজন্মের : আবুল কালাম আজাদকে এমপি হিসাবে দেখতে চায়। 

নলডাঙ্গা বার্তা ডেস্ক :
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১২ আগস্ট, ২০২৩
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্যুঞ্জয়ি সাবেক ছাত্র নেতা, আগামী সংসদ নির্বাচনে রাজশাহী ৪ বাগমারা আসনের আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী, ও তাহেরপুর পৌরসভার তৃতীয় বারের সফল মেয়র, অধ্যক্ষ মোঃ আবুল কালাম আজাদ এর সংক্ষিপ্ত জীবন বৃত্তান্ত:-১৯৯১-১ম বিভাগ এসএসসি -তাহেরপুর উচ্চবিদ্যালয়।
১৪৬ বার পঠিত

বাগমারা’য় সাধারণ মানুষের প্রানের দাবী নতুন প্রজন্মের : আবুল কালাম আজাদকে এমপি হিসাবে দেখতে চায়।

মো: জাহাঙ্গীর আলম, রাজশাহী প্রতিনিধিঃ

 

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্যুঞ্জয়ি সাবেক ছাত্র নেতা, আগামী সংসদ নির্বাচনে রাজশাহী ৪ বাগমারা আসনের আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী, ও তাহেরপুর পৌরসভার তৃতীয় বারের সফল মেয়র, অধ্যক্ষ মোঃ আবুল কালাম আজাদ
এর সংক্ষিপ্ত জীবন বৃত্তান্ত:-১৯৯১-১ম বিভাগ এসএসসি -তাহেরপুর উচ্চবিদ্যালয়।

১৯৯৪-২য় বিভাগ এইচএসসি- রাজশাহী কলেজ, রাজশাহী। ১৯৯৭,২য় শ্রেণী বিএসএস(সম্মান)- রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯৯৮, ২য় শ্রেণী এমএসএস- রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। রাজনৈতিক অবস্থানঃ ১৯৮৬ তাহেরপুর উচ্চ বিদ্যালয় ভর্তি হন লেখাপড়ার পাশাপাশি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে মনে ধারণ করেন ১৯৮৭ সালে তাহেরপুর উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রলীগের স্কুল কমিটির সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

১৯৯৫ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের জিয়া হল শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দায়িত্ব পালন করেন জামাত-শিবিরের সাথে লড়াই সংগ্রাম করে টিকে থাকা শেখ হাসিনা’র সৈনিক হিসেবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় পরিচিতি লাভ করেন। ১৯৯৭ সালে মতিহারের সবুজ চত্বরে বঙ্গবন্ধু সাহসিক আদর্শ পথে-প্রান্তরে চিরশত্রু জামাত- শিবিরদের লড়াই করে টিকে থাকার ছাত্রলীগের হাতিয়ার হিসেবে তৈরি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের যুগ্মসম্পাদক নির্বাচিত হন।

২০০১ সালে চারদলীয় জোট সরকারের আমলে একাধিক রাজনৈতিক হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা ও দীর্ঘদিন কারাবাস। ২০০২ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় আহবায়ক কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৩ সালে রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের ১নং সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন। নিজ এলাকা তাহেরপুর পৌরসভা স্থানীয় নেতাদের সাথে তাহেরপুর পৌর আওয়ামীলীগের সক্রিয় ভূমিকা পালনের মাধ্যমে ২০০৪ সালে তাহেরপুর পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। তাহেরপুর পৌরবাসীর সুখ দুখে বিভিন্ন সমস্যার সমাধান খোঁজে সাধারণ মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টায় পৌর আওয়ামীলীগের নেতাদেরকে নিয়ে আওয়ামীলীগের রাজনীতি ভূমিকা পালনে পরীক্ষিত নেতা হয়ে ওঠেন।

২০০৭ সালের ৭এপ্রিল রাজনৈতিক প্রতি হিংসার স্বীকার হয়ে RAB কর্তৃক নির্যাতিত হয়ে দুই পা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে এবং পরবর্তীতে মামলাটি রাজনৈতিক মামলা হিসাবে বিবেচিত হওয়ায় রাষ্ট্রীয় ভাবে প্রত্যাহার করা হয়েছে। ২০০৯ সালের ৬ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর রাজনীতি ধারাবাহিকতায় অতিবাহিত হওয়ারন মাধ্যমে ২০১১ তাহেরপুর প্রথম শ্রেণীর পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে প্রথম বার নির্বাচিত হন। শুরু হয় নতুন এক যাত্রা পৌরসভা’কে নিয়ে প্রথম পরিকল্পনা পৌরসভা অফিস নির্মাণের নপর হতে জনপ্রতিনিধি ও জনগণের পাশে থাকে দায়িত্ব পালনে মধ্য নদিয়ে দিনের-পর-দিন ছুটে চলা।

২০১৩ সালে তাহেরপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে দ্বিতীয় বার নির্বাচিত হন। ২০১৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বর পৌর নির্বাচনে নৌকা প্রতিক নিয়ে ০৯টি ওয়ার্ডের প্রতিটি কেন্দ্রে জয়লাভ করে দ্বিতীয় বার মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর তাহেরপুর পৌরসভাকে একটি মডেল পৌরসভা হিসেবে রূপান্তরিত করার লক্ষে বিভিন্ন প্রকল্প সঠিক পরিকল্পনা প্রণয়ন বাস্তবায়ন মাধ্যমে শহীদ মিনার, মুজিব চত্বর, বেড়িবাদ, রসুপার মার্কেট, বাস স্ট্যান্ড, অডিটোরিয়াম, রাস্তা, ব্রিজ, কালভার্ট, ল্যাম্পপোস্ট, গ্রামের ভেতর আরসিসি রাস্তা সহ পৌরসভার পানি সরবরাহ প্রকল্প চলমান।

২০১৭ সালে থেকে সারা বাগমারা গণমানুষের নেতা হিসেবে পরিচিত লাভ করেন বাগমারার ত্যাগী আওয়ামীলীগ নেতাদের নিয়ে ২০১৮ সালে জাতীয় নির্বাচনে বাগমারা-৪ আসনে এমপি পদে আওয়ামীলীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। ২০২০ সালে তাহেরপুর পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে তৃতীয় বার নির্বাচিত হন। ২০২০ সালে রাজশাহী জেলা নআওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত (প্রস্তাবিত কমিটি)। ২০২০ সালে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। ২০২১ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি পৌর নির্বাচনে ০৯টি ওয়ার্ডের প্রতিটি কেন্দ্র জয়লাভ করে তৃতীয় বারে হ্যাটট্রিক মেয়র নির্বাচিত হন।

২০২৪ সালে জাতীয় নির্বাচনে একজন সফল নেতা হিসেবে, সারা বাগমারার সাধারণ মানুষের প্রানের দাবী নতুন প্রজন্মের একজন আলোর দিশারি, জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার পরিক্ষিত মৃত্যুঞ্জয়ী সাবেক ছাত্রনেতা, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার প্রতিজ্ঞাবদ্ধ সৈনিক’কে বাগমারা-৪ আসনে (এমপি পদপ্রার্থী) বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকার পদপ্রার্থী দেখতে চাই।

Facebook Comments Box

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ ©  নলডাঙ্গা বার্তা

 
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park